প্রতিষ্ঠান ই-রিকুইজেশন বা শিক্ষক চাহিদা বিজ্ঞপ্তি-২০২০

এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো যাচ্ছে যে, বেসরকারি শিক্ষক নিবদ্ধন ও প্রত্যায়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) তৃতীয় বারের মত দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল, কলেজ, কারিগরী, মাদ্রাসা, ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা) শূন্য পদের বিপরীতে শিক্ষক নিয়োগ প্রদানের সুপারিশের কার্যক্রম শুরু করেছে। এ লক্ষে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ হতে অনলাইনে শূন্য পদের চাহিদা ই-রিকুইজেশন (এনটিআরসিএ) এর ওয়েবসাইডে প্রবেশ করে প্রতিষ্ঠান প্রধানগনকে নিজস্ব ইউজার আইডি ও পাসওর্য়াড ব্যবহার করে আগামী ২৪/০১/২০২০ তারিখ হতে ২৩/০১/২০২০ তারিখ পর্যন্ত প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হলো। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের ঘোষিত শূন্য পদ সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এবং জেলা শিক্ষা অফিসার অবশ্যই স্ব স্ব আইডি ও পাসওর্য়াড ব্যবহার করে যাচাই পূর্বক প্রত্যয়ন/স্বাক্ষর প্রদান করবেন। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এবং জেলা শিক্ষা অফিসারের প্রত্যায়ন স্বাক্ষার ব্যতীত কোন শূন্য পদ এনটিআরসিএ কর্তৃপক্ষ গ্রহন/ আমলে নিবেনা।

যথাযথভাবে এ কাজটি সম্পাদনের জন্য বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগনকে এনটিআরসিএ এর ওয়েবসাইডে প্রদর্শিত নির্দেশনাবলী অনুসরণ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

অনলাইনে ই-রিকুইজেশন প্রদানে ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক পালনীয় নির্দেশনাবলীঃ

১. বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ, কারিগরী, মাদরাসা, ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা) সর্বশেষ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে।
২. পদটি প্রকৃত শূন্য কিনা নিশ্চিত হয়ে চাহিদা প্রদান করতে হবে।
৩. চাহিদা পদটি জেনারেল শাখা না টেকনিক্যাল শাখায় তা নিশ্চিত হয়ে ই-রিকুইজেশন ফরম যথাযথভাবে পূরন করতে হবে।
৪. পূরণকৃত ই-রিকুইজেশন ফরমটি ডাউনলোড করে হার্ডকপি সংরক্ষণ করতে হবে।
৫. সরকার নির্ধারিত মহিলা কোটার পরিপত্র অনুসরণ করতে হবে।
যেমন- গ্রাম বা কমসল ভিত্তিক মোট শিক্ষকদের মধ্যে ২০% মহিলা এবং শহর বা পৌর এলাকায় মোট শিক্ষকদের মধ্যে ৩০% মহিলা শিক্ষক অনুসরণ করতে হবে।
৬. যে পদের বিষয় স্বীকৃতি ও অধিভুক্তি আছে সে পদের বিপরীতে ই-রিকুইজেশন দিতে হবে।
৭. চাহিদা পদটি এমপিও অথবা ননএমপিও তা অবশ্যই সঠিকভাবে উল্লেখ করতে হবে।
৮. মোট অনুমোদিত পদের নাম ও সংখ্যা উল্লেখ করতে হবে। কর্মরত পুরুষ ও মহিলা শিক্ষকের সংখ্যাও উল্লেখ করতে হবে।
৯. কোন পদের বিপরীতে মামলা থাকলে ঐ পদের চাহিদা প্রদান করা যাবেনা।
১০. শূন্য পদ প্রদানের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠান প্রধানের পরামর্শের প্রয়োজন হলে সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।
১১. কারিগরী শাখা হলে চাহিত পদের নামটি ভালভাবে দেখে পূরণ করতে হবে।
১২. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক দাখিলকৃত ই-রিকুইজেশন সঠিক কিনা তা সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও জেলা শিক্ষা অফিসার অবশ্যই যাচাই করবেন।
১৩. ই-রিকুইজেশন এর ক্ষেত্রে কোন ভুল তথ্য অথবা অসম্পপূর্ন তথ্য প্রদান করলে তার দায় দায়িত্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের উপর বর্তাবে এবং তার বিরুদ্ধে জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ এর ১৮.১(ঘ)অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

১৮.১ অনুচ্ছেদের (ঘ) পরিচ্ছেদে কি?

প্রতিষ্ঠান কর্তৃক এনটিআরসিএ-তে শিক্ষক/কর্মচারীর চাহিদা দিলে, উক্ত পদে এনটিআরসিএ কর্তৃক নির্বাচিত/মনোনীত শিক্ষক/কর্মচারীর নিয়োগ দিতে হবে প্যাটার্ণ অতিরিক্ত চাহিদা দিলে উক্ত শিক্ষক/কর্মচারীর শতভাগ বেতন প্রতিষ্ঠান থেকে নির্বাহ করতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে প্রতিষ্ঠান প্রধানের বেতন স্থগিত/বাতিল করা হবেল এবং পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিঃদ্রঃ শিক্ষক চাহিদা প্রদানের সময় অবশ্যই উপরিউক্ত বিষয় গুলো ভেবে চিন্তে শিক্ষক চাহিদা প্রদান করাতে হবে। পরিপত্র গুলো ভালোভাবে অনুশীলন করতে হবে। চাহিদা প্রদানরে জন্য অবশ্যই রেজুলেশন তৈরি করতে হবে। চাহিদা প্রদানের সময় রেজুলেশন নম্বর ও তারিখ উল্লেখ করতে হবে এবং কি করণে শিক্ষক চাহিদা দিচ্ছেন তার বিবরণ অবশ্যই রেজুলেশনে বিস্তারি আলোচনা থাকতে হবে। এই দায়িত্ব সম্পূর্ণ প্রতিষ্ঠান প্রধানের। যদি কোন প্রতিষ্ঠান প্রধান চাহিদা প্রদানে ভুলত্রুটি করে তা হলে যে শিক্ষক নিয়োগ পাবে যদি কোন কারণে তার বেতন না হয়। তার দায়দায়িত্ব সম্পূর্ন রূপে প্রতিষ্ঠান প্রধান বহন করবেন। তাই সাবধান।

115 Comments on “প্রতিষ্ঠান ই-রিকুইজেশন বা শিক্ষক চাহিদা বিজ্ঞপ্তি-২০২০”

  1. I’ve been surfing online more than three hours
    today, yet I never found any interesting article like yours.
    It is pretty worth enough for me. In my opinion, if all website owners and bloggers made good content as you did, the internet will be much more useful than ever before.

  2. Сервис помощи студентам 24 АВТОР (24 AUTHOR) – официальный сайт.
    Сайт автор 24
    Работаем с 2012 года. Гарантии, бесплатные доработки, антиплагиат. Заказать диплом (дипломную работу), курсовую, магистерскую или любую другую студенческую работу можно здесь.

Leave a Reply

Your email address will not be published.