এমপিওভুক্ত হবেন 2018 নীতিমালা জারির পূর্বে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এবং পরে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ

এমপিওভুক্ত হবেন 2018 নীতিমালা জারির পূর্বে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এবং পরে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ

এমপিওভুক্ত হবেন 2018 নীতিমালা জারির পূর্বে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এবং পরে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ: জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা 2018 জারির পূর্বে নিয়োগের কার্যক্রম শুরু হয়ে ১২/০৬/২০১৮ তারিখের পরে অবশিষ্ট কার্যক্রম সম্পন্ন হয় এমন নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ এমপিওভুক্ত হতে পারবেন মোঃ বেলাল হোসেন পরিচালক মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর ১৩ জানুয়ারি ২০২১ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছেন।
এই বিজ্ঞপ্তির পূর্বে  মোঃ কামরুল হাসান, উপসচিব  মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ ১৪/১২/২০২০খ্রিঃ তারিখ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশ করেন যে, উপযুক্ত বিষয় ও সূত্রের পরিপ্রেক্ষিতে জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ জারির পূর্বে নিয়োগের কার্যক্রম শুরু হয়ে ১২/০৬/২০১৮ তারিখের পরে অবশিষ্ট কার্যক্রম সম্পন্ন হয়। এমন নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারী এমপিওভুক্তির বিষয়ে অর্থ বিভাগ অর্থ মন্ত্রণালয় বাজেট অধিশাখা-২ এর ১৭/১১/২০২০ তারিখে স্মারক নং ০৭.০০.০০০০.১০২.২০.০২৪.১৮.৩৮২ মোতাবেক পরবর্তী প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

কি ছিল সেই ১৭/১১/২০২০ পরিপত্রে দেখে নেয়া যাকঃ

১৭ নভেম্বর ২০২০ এর পরিপত্র টি নিম্নে তুলে ধরা হলোঃ
উপযুক্ত বিষয় ও সূত্রের প্রেক্ষিতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ জারির পূর্বে নিয়োগের কার্যক্রম শুরু হয়ে উক্ত নীতিমালা জারির পর এ নিয়োগ এর কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়া শিক্ষক-কর্মচারীর এমপিওভুক্তির বিষয় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর অনুচ্ছেদ-১১.১৩ অনুচ্ছেদ- ১১.১৭ অনুচ্ছেদ- ১৮ [১৮.১ (ঘ)] অনুচ্ছেদ-২৩ এবং অনুচ্ছেদ- ২৪ (ঙ) এ উল্লেখিত বিধানাবলীর আলোকে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

এবার দেখে নেয়া যাক উপরে লিখিত অনুচ্ছেদ গুলোতে কি ছিলঃ

অনুচ্ছেদ-১১.১৩: ইনডেক্সধারী শিক্ষক/কর্মচারী সমপদ/সমস্কেলে প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন বা উচ্চ পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে এ নীতিমালার পরিশিষ্ট ‘ঘ’ তে বর্ণিত শিক্ষাগত যোগ্যতা (শ্রেণী/বিভাগ) প্রযোজ্য হবে না; সে ক্ষেত্রে তাদের প্রথম নিয়োগ কালীন শিক্ষাগত যোগ্যতা প্রযোজ্য হবে।
এবার প্রশ্ন থাকতে পারে পরিশিষ্ট ‘ঘ’ কি পরিশিষ্ট ঘ হচ্ছে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারীদের জন্য নিয়োগ যোগ্যতা অভিজ্ঞতা ও বেতন স্কেল নির্ধারণ যা নীমালায় পরিশিষ্ট-ঘ ছকে আছে।
তাহলে আমরা এই অনুচ্ছেদ হতে জানতে পারি এই নীতিমালা জারির পূর্বে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ  বা নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন শিক্ষক-কর্মচারীগণ বর্তমান ২০১৮ জনবল কাঠামোর আওতায় তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা বা বেতন স্কেল প্রযোজ্য হবে না তাদের অনুসরণ করতে হবে ২০১৩ জনবল কাঠামো।
অনুচ্ছেদ ১১.১৭ এই নীতিমালা জারির পূর্বে বিধি মোতাবেক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারী এই জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা বর্ণিত প্যাটার্নভুক্ত শূন্যপদে এমপিওভুক্ত হতে পারবেন।

অনুচ্ছেদ- ১৮ [১৮.১ (ঘ)]: অনুচ্ছেদ-১৮ বেতন ভাতাদি সরকারি অংশ স্থগিত বা বাতিল করুনঃ

১৮.১. মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রণালয় নিম্নোক্ত কারণে কোনো বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি সরকারি অংশ বরাদ্দ সাময়িক বন্ধ, আংশিক বা সম্পূর্ণ কর্তন কিংবা বাতিল করতে পারবে; (ঘ) প্রতিষ্ঠান কর্তৃক NTRCA- তে শিক্ষক-কর্মচারীর চাহিদা দিলে, উক্ত পদে NTRCA কর্তৃক নির্বাচিত/মনোনীত শিক্ষক/কর্মচারী নিয়োগ দিতে হবে। প্যাটার্ন অতিরিক্ত চাহিদা দিলে উক্ত শিক্ষক/কর্মচারীর শতভাগ বেতন-ভাতা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে নির্বাহ করতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে প্রতিষ্ঠান প্রধানের বেতন ভাতা স্থগিত/ বাতিল করা হবে এবং পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
অনুচ্ছেদ-২৩ রহিতকরণ: এ নীতিমালা কার্যকর হওয়ার পূর্বে জারিকৃত শিক্ষা মন্ত্রণালয় এতদসংক্রান্ত সকল আদেশ ও নির্দেশনালয় বর্ণিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতাদি সরকারি অংশ এবং জনবল কাঠামো সম্পর্কিত সংশ্লিষ্ট অংশসমূহ বাতিল বলে গণ্য হবে।
অনুচ্ছেদ-২৪ (ঙ) এ নীতিমালা অবিলম্বে কার্যকর হবে। বিজ্ঞপ্তি দেখতে ক্লিক করুন




Leave a Comment

Scroll to Top